সব চরিত্র কাল্পনিক

DIPAYAN ADHIKARY

Image result for guy looking out the window

মাথার ঘাম মুছতে মুছতে আজও যখন বাসের ছোট্ট জানলার অলিন্দ দিয়ে বাইরে উকি মারি..
দেখি.. কিছু পাল্টায়নি..
বদলায়নি রাস্তার একদিকে জমে থাকা wooden আসবাবের দোকানের কোলাহল, বদলায়নি তোর আমার দাঁড়িয়ে থাকার সেই প্রাচীন চাতাল । বাসের দ্রুত গতির সাথে চোখ মিলিয়ে ধরে থাকার চেষ্টা করি – আমাদের সেই রঙিন ফ্রেমের সেই অবয়ব অতীত ।
কিন্তু কোই ? পারলাম না তো ।
আসলে আমার সাথে চলতে থাকা জীবনের রমরমা “ব্যবসা” তা পেরে উঠতে দেয়নি ।
জানিস, আজও মনে পরে সেই ১৫ মিনিটের সাক্ষাতে দুজনের সারাদিনের ক্লান্তি দূর করার অক্লান্ত চেষ্টা, মনে আছে তোর, পাশাপাশি দাড়িয়ে হাত দিয়ে আমার তোর হাত ছুঁতেই তোর কিছু না বলে মাথা নীচু করে চলে যাওয়া ? স্পর্শটা আজও জীবিত । কিছু বদলায়নি… কিন্তু আজ বৃষ্টি তার আঁচল দিয়ে মুছে ফেলতে চায় আমাদের সুখের সেই দিনগুলো । কেন কে জানে ? হয়তো নতুন হয়ে ফিরে আসবে বলে ।
আচ্ছা ?
কিছুই কী বদলায়ইনি?
উহু…
বদলেছে তো ।
বদলেছে তোর জীবনকে দেখার কায়দা । বদলেছে ভালো থাকার কিছু ধরন । সব তো ভালোই ছিল ?
তাহলে কেন আজ সবাই মিলে আমায় হাড়িয়ে দিলি ? আমিতো অভিমান, রাগ সবটা নিয়েই চলে গেছিলাম – আমিতো ভুলে যেতে চেয়েছিলাম তোর সব দোষ – গুন । তবে কেন ? আবার আমার রাগ-অভিমান-গর্বের সাম্রাজ্য ভেঙে দিয়ে ফকির হতে বাধ্য করলি ? কেন ?
তবে কী … ?
তুই ফিরবি…?
আবার কী পুজোয় অষ্টমীতে তোর পছন্দের সেই মেরুন পাঞ্জাবী পড়ে দাঁড়াব তোর বাড়ির সামনে ?
না না । কাদছিনা ।
চোখে জল আমার আসে না, আসেনা মুখ গোমরা করে রাষ্ট্র করতে নিজের অবস্থা । শুধু পারি হাসতে । খুশিতে হাসতে, কষ্টে হাসতে । দেড় বছর এমনি এমনি কাটেনি, একটা দিনও যায়নি যেদিন জানলার ফাঁক দিয়ে তোর আসার “অপেক্ষা” করিনি ।
কিন্তু….
আসিসনি তুই…
আসতে হয়নি তোকে, আসতে হয়নি তোকে বলতে যে তুইও ভালবাসতিস আমায়…
নাকি … ?
ভালবাসিস .. ?
নাকি আজও সবটা তোর আমায় ভুলিয়ে রাখার সাজানো-গোছানো নাটক ?
তবে আজও তোর অপেক্ষা শেষ হয়নি ?
হয়তো সেটাও তোর বলা বারন…
আমি আর পারিনি জানিস । জীবন সব কিছুর শেষে এনে দাড় করিয়েছে । আমার অপেক্ষা কি তাহলে কখনওই শেষ হবে না ?
নাকি “অপেক্ষা” –ই আমার শাস্তি । শাস্তি তোকে সেদিন ভুল বোঝার ? তোকে সেদিন বাধ্য করার ফিরে যেতে শূন্য হাতে ?
সেই তো…
তুই তো এসছিলি সেদিন…
একবার বুকে চেপে ধরে তোকে, কাঁদতে পারতাম না ? ভাসিয়ে দিতে পারতাম না নিজের অভিমান-রাগকে চোখের জলে ?
বলতেই তো পারতাম – “কি হয়ছে ? আমি আছি তো নাকি ? সারাজীবন থাকবো তো । কাঁদছিস কেন বোকার মতোন ?
হুহ… ( ঠোটের কোনে হাসি টেনে )
সেদিন যখন মুখ ফিরিয়ে ছিলাম তাহলে আজ কেন চোখে জল আসে রোজ রাতে ?
আজও তো ইতিহাস ঘেটে তোর নামেই হাত বোলাই…
সব তো কালো বাষ্পে মিশে শেষ হয়ে গেছে ।
বাক্য আজ ব্যর্থ ।
আবেগ আজ ক্লান্ত ।
আজ বিকল্পের বাজারে তোর হয়তো অপেক্ষা শেষ … কিন্তু…
আমার অপেক্ষা শেষ হবে তোর আঙ্গুলের ফাঁকে ঠিক আগের মতো নিজের আঙ্গুল রেখে…..
ভালো থাকিস…
অপেক্ষায় রইলাম…..

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s